মাহফুজুর রহমান সোহাগ : কোন ম্যাজিষ্ট্রেট নেই, লিখিত কোন নোটিশ নেই, পূর্বের ৩দিন চলা মাইকিং এর উপর ভর
করে গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে ব্যবসায়ীদের দোকান পাটের সামনের অংশ বেকু মেশিন দিয়ে
ভেঙ্গে চুড়মার করে দিয়েছে নালিতাবাড়ী পৌরসভার মেয়র আবু বক্কর সিদ্দিক। ম্যাজিষ্ট্রেট
বিহীন সওজ’র জায়গায় পৌরসভার এমন নিময় বর্হিভূত ভাংচুর অভিযানে ব্যবসায়ীরা ক্ষোভ
জানিয়েছেন। একই সাথে শহরের উত্তর বাজার এলাকার আওয়ামীলীগের (একাংশ) অফিসের
বঙ্গবন্ধুর ছবি সম্বলিত সাইন বোর্ডের সামনের অংশ ও ফরহাদ ফটোষ্ট্র্যাট দোকানের
সামনের টেবিল গøাস বেকু মেশিনে ভেঙ্গে ফেলা হয়েছে। এলাকাবাসী, ব্যবসায়ী ও মেয়র
সূত্রে জানা গেছে, শহরের মানুষ কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই শহরের উত্তর বাজার হতে
দক্ষিণ বাজার পর্যন্ত পাচঁ শতাধিক দোকানপাটের মধ্যে শতাধিক দোকান পাটের সামনের
অংশ ভাংতে শুরু করে। এতে মানুষজন আতংকগ্রস্থ হয়ে পড়ে। কে কোন জিনিস সরাবে তা
ভাবতে পারেনি। ফলে দ্রæত সময়ে চলা আতংক অভিযানে দোকান পাটের সামনে রাখা
জিনিসপত্র ও দোকানের সামনের অংশ অনেকে সরাতে পারেনি। কিছুদিন পূর্বে শহরের উত্তর
বাজার এলাকায় সওজ কর্র্তৃক নতুন ড্রেন নির্মাণ করার পর স্ব স্ব দোকান মালিক যার যায়
দোকানের সামনে নতুন বারান্দা করে দোকান শুরু করেছেন। এ ব্যাপারে পৌরসভা হতে কোন
প্রকার বাধা নিষেধ বা কোন ধরনের লিখিত নোটিশও দেওয়া হয়নি বলে জানান ব্যবসায়ী ও
দোকান মালিকগণ। এব্যাপারে ফরহাদ ফটোষ্ট্যাটের মালিক কমান্ডার মো: আনোয়ার হোসেন
বলেন, সওজ’র জায়গার বাইরে আমাদের দোকান। এটা পৌরসভার জায়গা না। আমরা ভাড়া
দিয়ে এখানে বহু বছর ধরে আছি। কোন সমস্যা হয়নি। কোন ধরনের সময় না দিয়ে হঠাৎ করে
ম্যাজিষ্ট্র্যাট বিহীন অভিযান, কোন লিখিত নোটিশ ছাড়াই আমাদের দোকানপাটের অংশ,
ঘরের উপরের অংশ, চালা, আমার ঘরের টেবিলের গøাস ভেঙ্গে ফেলা হয়েছে। আমরা কষ্ট করেদোকানপাট, ব্যবসা, বানিজ্য করে খাই। আমদের মতো গরীব মানুষের উপর এটা করা কোন
ভাবেই ঠিক হয়নি। সার ব্যবসায়ী নুর মোহাম্মদ বলেন, কোন ম্যাজিষ্ট্র্যাট দিয়ে এ অভিযান
হয়নি। কোন লিখিত নোটিশও পাইনি যে এটা ওটা সরাতে হবে। আমার দোকানের সামনে
যে ভাংচুর হয়েছে তাতে পৌরসভার মেয়র এটা করতে পারে না। কারণ এটা পৌরসভার জায়গার
মধ্যে নয়। এটা আমার নিজস্ব জায়গায়। এটা সওজ কর্তৃপক্ষ অথবা এলজিইডি ম্যাপে
দেখতে পারে। মেয়র কিভাবে এটা করতে পারে? নালিতাবাড়ী পৌরসভার মেয়র আবু বক্কর সিদ্দিক
বলেন, আমি মাইকিং করেছি। সরকারী জায়গায় যারা এসব তুলেছে সেগুলি ভেঙ্গে ফেলা
হয়েছে।