তথ্যধারা প্রতিবেদক : না বুঝে তড়িঘড়ি করে আওয়ামী লীগের ত্রাণ কমিটি নিয়ে বক্তব্য দিয়ে টিআইবি ও বিএনপি চরম দায়িত্বহীনতার পরিচয় দিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। গতকাল শনিবার বিকেলে একাদশ জাতীয় সংসদের ৭ম এবং চলতি বছরের দ্বিতীয় অধিবেশনে যোগ দেয়ার আগে সংসদ চত্বরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাছান মাহমুদ এ মন্তব্য করেন।

দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার প্রেক্ষিতে যে ত্রাণ কার্যক্রম চলছে তাতে সহায়তা দিতে ওয়ার্ড পর্যায় পর্যন্ত আওয়ামী লীগের ‘ত্রাণ কমিটি’ গঠনের ঘোষণায় সতর্ক প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে, এই উদ্যোগ যেন ‘স্থানীয় প্রশাসনকে সহায়তা দেওয়ার’ মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকে তা নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। গত শুক্রবার এক বিবৃতিতে সংস্থাটি বলেছে, দেশের বিভিন্ন এলাকায় ত্রাণ সামগ্রী চুরি ও আত্মসাতসহ বিভিন্ন প্রকার দুর্নীতি এবং তাতে দলীয় নেতাকর্মীদের জড়িত থাকার যে খবর গণমাধ্যমে প্রকাশিত হচ্ছে, তাতে এই দলীয় ত্রাণ কমিটি কার্যত কতটুকু ইতিবাচক ভ‚মিকা পালন করবে তা নিয়ে সংশয় থাকাটা অস্বাভাবিক নয়। বিএনপির পক্ষ থেকেও এই আওয়ামী লীগের ত্রাণ কমিটি বাতিলের দাবি জানানো হয়।

টিআইবি বক্তব্যের বিষয়ে হাছান মাহমুদ বলেন, আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে প্রত্যন্ত গ্রাম পর্যায় পর্যন্ত যে ত্রাণ বিতরণ কমিটি গঠন করতে বলা হয়েছে, তা শুধুমাত্র দলীয় ত্রাণের সুষ্ঠু বিতরণ ও সমন্বয়ের জন্য, সরকারি ত্রাণ বিতরণের জন্য নয়। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকতে বা বিরোধী দল হিসেবেও সবসময় সকল দুর্যোগে জনগণের পাশে দাঁড়িয়েছে এবং জননেত্রী শেখ হাসিনা সর্বদা সেই নির্দেশই দিয়েছেন। তিনি বলেন, দলীয় ত্রাণ কমিটির কাজ হবে শুধু আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে দেয়া ত্রাণ বিতরণ করা এবং আওয়ামী লীগের সব পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় শুরু থেকেই যে ত্রাণ বিতরণ করছেন, তা সমন্বয় করা। যাতে সব মানুষের কাছে ত্রাণ পৌঁছায়, কোনো দুস্থ মানুষই যাতে ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রমের বাইরে না থাকে এবং সুষম বণ্টন হয়। তথ্যমন্ত্রী বলেন, সরকারি ত্রাণ বিতরণে এই কমিটির যে কোনো ভ‚মিকা নেই, সেটি না বুঝে তড়িঘড়ি করে বিবৃতি দিয়ে টিআইবি ও রিজভী সাহেব দায়িত্বশীলতার পরিচয় দেননি বরং চরম দায়িত্বহীনতারই পরিচয় দিয়েছেন।